উন্মুক্ত পাতা গল্প

আমার একলা পৃথিবীঃ তাসমিয়া জান্নাত

চললাম আমি বহুদূরের পথে, যে পথে কভু তুমি ছিলে না।

চললাম আমি সে পথে, যে পথে কভু তোমার ছোঁয়া লাগেনি।
যে পথের গাছগাছালিতে তোমার নিঃশ্বাসের বিষাক্ত কার্বন ডাই-অক্সাইডের অস্তিত্ব নেই, সে পথ ধরেই আমার চলা!
সেই পথ-প্রান্তরের সাথেই আমার মিতালী।
সেই পথের পাখ-পাখালিদের সাথেই আমার সখ্যতা, আমার অন্তরঙ্গতা!
তুমি বিনে দেখবো আমি….সুদূর আকাশের ঐ নীলিমা, যেই নীলিমা সবুজাভ প্রান্তর ঘেঁষে অন্তহীন, অজানা কোনো ঠিকানায় পাড়ি জমিয়েছে।
হা হা! তুমি বিনে আমি একটা সুন্দর পৃথিবীর বাসিন্দা তো হতেই পারি!
যেখানে কোনো এক প্রান্ত থেকে ভেসে আসবে রাখালিয়া বাঁশির সুর…
পাখিদের সাথে নিয়ে সেই বাঁশির সুরেই না হয় আমি গান ধরব….”শোন, অভ্যেস বলে কিছু হয় না এই পৃথিবীতে, পাল্টে ফেলাই বেঁচে থাকা…।” গাইতে গাইতেই হয়তো সন্ধ্যাটা ঘনিয়ে আসবে। গাছের শাখা আর পাতার ছাওনীতে তৈরি আমার ছোট্ট কুটিরের ফাঁক বেয়ে চাঁদের আলো ঠিকরে ঠিকরে পড়বে। প্রকৃতিকে সাথে নিয়ে সময়গুলো কেটে যাবে আমার। প্রকৃতিই হবে আমার প্রেম, প্রকৃতিই হবে আমার ভালোবাসা। প্রকৃতির এই রাজ্যটাই হবে তুমি বিনে আমার একলা পৃথিবী।

About the author

lohagarabd

Leave a Comment