আলোকিত ব্যক্তিত্ব

লোহাগাড়ার চুনতির মেয়ে বুশরা “হান্টলি শলার অ্যাওয়ার্ড” অর্জন

Written by lohagarabd
চট্টগ্রাম জেলার লোহাগাড়া উপজেলার চুনতি গ্রামটি বাংলাদেশের শিক্ষাঙ্গনে একটি ঐতিহ্যমণ্ডিত শিক্ষিত গ্রাম হিসেবে স্বীকৃত। ছোট ছোট পাহাড় ও টীলাসমূহ দ্বারা বেষ্টিত এই গ্রামটিতে কালের পর কাল জন্ম নিয়েছে বহু গুণীজন। এরই ধারাবাহিকতায় এখনো শতভাগ শিক্ষার অগ্রগতি নিয়ে দেশের গণ্ডি পেরিয়ে বিশ্ব পরিমণ্ডলে এই অঞ্চলের মানুষের খ্যাতি রয়েছে।
চুনতির আরেক প্রখর অগ্রগামী মেধাবী কণ্যা ফাবিহা বুশরা কানাডার কার্লটন ইউনিভার্সিটি থেকে “হান্টলে শলার অ্যাওয়ার্ড” লাভ করেছেন। উল্লেখ্য, লোহাগাড়ার সূর্য্য সন্তান চট্টগ্রাম তথা পুরো বাংলাদেশের গর্ব মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর সামরিক সচিব মেজর জেনারেল মিয়া মুহাম্মদ জয়নাল আবেদীন পিএসসি, বীর বিক্রম এবং আসিফা বেগম চৌধুরী জিনা’র জ্যৈষ্ঠ তনয়া ফাবিহা বুশরা কানাডার কার্লটন ইউনিভার্সিটির অর্থনীতি বিভাগ থেকে স্নাতকোত্তর করছেন। অর্থনীতি বিষয়ে সবচেয়ে ভাল গবেষণা পত্রের জন্য তিনি ২০১৯ সালের এই পদক লাভ করেন। অর্থনীতি বিভাগের প্রধানের সুপারিশক্রমে গ্র্যাজুয়েট এবং পোস্ট ডক্টরাল বিষয়ক ডিন প্রতিবছর সবচেয়ে মেধাবী গ্র্যাজুয়েট শিক্ষার্থীকে এই পদক প্রদান করেন। বুশরা ২০১৯ সাল থেকে শুরু হওয়া অর্থনীতিতে পিএইচডি কর্মসূচিতে অন্তর্ভুক্ত হন।
কার্লটন বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব ওয়েবসাইট সূত্রে জানা যায়, এই পুরস্কারের উদ্দেশ্য অর্থনীতিতে গবেষণা সাধনের জন্য শিক্ষার্থীদের উৎসাহিত করা। বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের চেয়ারম্যান ছিলেন অধ্যাপক হান্টলে শলার। অধ্যাপক হান্টলে শলার ছিলেন অত্র বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্থনীতি বিভাগের একজন নিবেদিত প্রাণ। ১৩ আগস্ট ১৯৫৬ সাল থেকে ২৪ জানুয়ারি ২০১৫ সাল পর্যন্ত অর্থাৎ তিনি দীর্ঘ ২৭ বছর এই বিশ্ববিদ্যালয়ে অধ্যাপনা করেন। তারমধ্যে ১৮ বছর তিনি অর্থনীতি বিভাগের চেয়ারম্যানের দায়িত্ব পালন করেন৷ ২৪ জানুয়ারি ২০১৫ সালে ৫৮ বছর বয়সে তিনি মৃত্যুবরণ করেন। তাঁর জীবনের প্রায় অর্ধেক সময় তিনি কার্লটন বিশ্ববিদ্যালয়ে ব্যয় করেন। ২০১৫ সালে হান্টলে শলার প্রয়াত হওয়ার পর তাঁর বন্ধু এবং সহকর্মীদের উদ্যোগে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ তাঁর স্মরণে এবং তাঁর নামানুসারে প্রতিবছর এই পুরস্কার দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন। এরই ধারাবাহিকতায় ২০১৯ সালের কার্লটন বিশ্ববিদ্যালয়ের এই সম্মানসূচক পুরষ্কার অর্জন করেন বাংলাদেশি মেয়ে ফাবিহা বুশরা।

About the author

lohagarabd

Leave a Comment